Botanix – একটি গাছপালা বিষয়ক সাময়িকী

Botanix বাংলা ভাষায়

ভারতীয় পদ্ম (Nelumbo nucifera)

ছবি

ভারতীয় পদ্ম ফুল

ভারতীয় পদ্ম (Nelumbo nucifera) একটি সুন্দর জলজ উদ্ভিদ যার গাঢ় সবুজ পাতাগুলো পানির পৃষ্ঠে ভেসে থাকে। গোলাপি রঙের ফুলটি সাধারনত পানির পৃষ্ঠদেশ কয়েক সে.মি উচ্চতায় একটি সরু বোঁটার উপরে পাওয়া যায়।

ভারতীয় পদ্ম ফুলকে পবিত্র বলে ধরা হয় এবং বৌদ্ধরা তাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদিতে এটি ব্যবহার করে। পুরো গাছটিই মানুষের কাজে লাগে যদিও এর বীজ ও মুল(আনুভূমিক কান্ড) রাণ্ণার কাজে দক্ষিন এশিয়া জুড়ে ব্যবহৃত হয়। ভারতীয় পদ্ম একটি জলাভুমির উদ্ভিদ যেটাকে সুগন্ধি জলপদ্মের মতোই জন্মানো যায়। অন্যান্য পরিবেশে এত জন্মানো তেমন কঠিন নয়, আপনাতে কেবল নিয়মটা জানতে হবে!

বীজ থেকে ভারতীয় পদ্ম জন্মাতে চাইলে বাইরের শক্ত আবরনটি অবশ্যই শিরিষ কাগজ দিয়ে সামান্য তুলে ফেলতে হবে (ঘষে বা বালুতে)। এতে যে বীজগুলো সহজে অংকুরিত হতে পারে না সেগুলোর জন্য পানির প্রবেশ সহজ হয়। শক্ত আবরনটি যদি অক্ষত থাকে তাহলে বীজগুলো কয়েকশ বছর পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে। যাহোক পানিতে রাখার পর বীজগুলো পল্লবিত হতে কয়েক বছর সময় লাগতে পারে।

ছবি

পল্লবিত ভারতীয় পদ্মের বীজ

বীজের শক্ত আবরনটি যথেষ্ট পরিমাণে ঘষে তোলা হয়েছে কিনা আপনি কিভাবে জানবেন? জলে ডুবানো একটি বীজের আকৃতি দেখে যে কেউ এটা বলতে পারে। ২৪ ঘন্টার মধ্যে বীজটি যদি আকৃতিতে দ্বিগুণ হয়, তাহলে আর ঘষতে হবে না। অন্যথায় আপনাকে বীজটির আরো কিছু অংশ ঘষে তুলুন তারপর আবার পানিতে ১৪ ঘন্টা ভিজিয়ে রেখে এর আকৃতি পরীক্ষা করুন। এই পদ্ধতিটি পুনরাবৃত্তি করতে হবে যতক্ষন পর্যন্ত না আকৃতি দ্বিগুন হয়।

বীজটির কেবল পানি দরকার…

ঘষে তোলার কাজটি সফলভাবে শেষ হলে, বীজটিকে একটি পানির পাত্রে ভিজিয়ে রাখুন। প্রাথমিক পর্যায়ে বীজ পল্লবায়নের জন্য পানির আদর্শ তাপমাত্রা হলো ২৭°সে থেকে ২৮°সে এর মধ্যে (যদিও বীজটি কেবল ২০°সে তাপামত্রায় আকৃতি দ্বিগুন করতে পারে)। এই তাপমাত্রায় বীজে তাড়াতাড়ি অংকুরোদগম হয়। ছবি ও নিবন্ধ দেখুন এখানে – http://www.victoria-adventure.org/…om_seed.html

পাতা বের হাবার সাথে সাথে পুরো চারাগাছটিকে কাদামাটি বা কৃত্রিম জলাধারের কাঁকরে ধারকের গোড়ায় বুনতে হবে (কৃত্রিম জলাধার বা পুকুর)। ধারকে পানির স্তর যেন অন্তত ভিত্তি থেকে ৩০ সেঃ মিঃ উঁচুতে থাকে। কাঁকরের কৃত্রিম জলাধার ব্যবহার করা হলে, মাছভর্তি জলাধারেও ভারতীয় পদ্ম সহজে বাড়তে পারে।

ধীরে ধীরে গাছটি প্রাপ্তবয়স্ক হয়ে উঠলে এর জন্যে আরও বেশি স্থান প্রয়োজন পড়বে। আপনি এটকে তখন শীতকালীন উদ্যানের কোন পুকুর , সবুজঘর, বা ঠান্ডা থেকে দুরবর্তী অন্য জায়গাতে এইটি রোপন করতে পারেন। ভারতীয় জলপদ্মের বৃদ্ধির জন্য আদর্শ তাপমাত্রা হলো ২০°সে এবং ৩৫°সে এর মধ্যে।

আমাদের আবহাওয়াতে, তাপমাত্রা সাধারনত নিম্ন থাকে, কিন্তু গাছটি কোন সমস্যা ছাড়াই বেঁচে থাকবে। গ্রীষ্মকালে আপনি ভারতীয় পদ্মের গাছটিকে বাইরের পুকুরে স্থানান্তর করতে পারেন কিন্তু শীতকাল একে ভেতরে রাখাই উচিত। খুব খারাপ হলে, এটি কোন আর্দ্র ঘরের ভেতর শীতনিদ্রায় থাকতে পারে, যেটা সুগন্ধি জলপদ্ম করে থাকে।

ভারতীয় পদ্মের বৃদ্ধির জন্য ৬০ বা ৮০ লিটার পানি ধারনক্ষমতার কনক্রিটের টাব ব্যবহার করার ধারনাটি বাদ দেয়াই ভাল – এর জন্য প্রতিটিতে ১০ ইউরো করে খরচ পড়বে। নিম্নলিখিত পদ্ধতিটি ব্যবহার করুন: পল্লবিত বীজগুলো একটি কাদার ভিত্তি বা কাকরের কৃত্রিম জলাধারে স্থাপন করুন, একটি ফুলের টবের ভেতর রেখে, তারপর ফুলের টবটিকে কোন কনক্রিট টাবে স্থাপন করুন। সর্বোত্তম ফলাফলের জন্য কনক্রিটের টাবটি পানি দিয়ে পরিপুর্ণ করুন।

কনক্রিটের টাব ব্যবহার করার সুবিধা হলো এটাকে আপনি শীতকালীন উদ্যান বা কক্ষে সহজে রাখতে পারবেন। পরবর্তী ক্ষেত্রে, টাবটিকে জানালার (বেলকনির জানালা হলে ভাল) কাছে রাখার জন্য পরামর্শ দেয়া হয়, এটা নিশ্চিত করতে যে ভারতীয় পদ্ম সুর্যালোক ও তাপ সহ্য করতে পারে। গ্রীষ্মকালে, আপনি আপনার বেলকনি অথবা উদ্যানের দক্ষিণ পাশে টাবটি রাখতে পারেন। আপনি খেয়াল করবেন, ভারতীয় পদ্ম গাছটি সহজে চাষ করা যায় – এমনটি কোন ভবনের কক্ষেও!

««« পূর্ববর্তী লেখা: ইন্দোনেশিয়ার আম পরবর্তী লেখা: বীজ থেকে আমগাছ জন্মানো »»»

বৃহস্পতিবার 10.12.2009 07:56 | মুদ্রন | বিচিত্র গাছপালা

KPR সম্বন্ধে

KPR - গার্ডেনার্স ক্লাব স্লোভাকিয়া
KPR - উদ্যানপালকদের ক্লাব একটি আন্তর্জাতিক উদ্যানপালকদের সংগঠন। আরো পড়ুন
গাছপালা জন্মানোর বিষয়ে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করুন। উদ্যানপালন, গাছপালা এবং গাছপালা জন্মানো ইত্যাদি বিষয়ে কোন লেখা লিখুন এবং সেটা আমাদের সাময়িকী Botanix -এ আপনার নিজের ভাষায় প্রকাশ করুন! বিশদভাবে জানার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।